দিনের শেষে ঘুমের দেশে (ভিডিও সহ)

16/06/2016 02:56

কবি গুরুর একটি বিখ্যাত গান ছিল “দিনের শেষে ঘুমের দেশে” (এটি কোন রবিন্দ্র সঙ্গীত নয়, এর সুরকার ছিলেন পঙ্কজ কুমার মল্লিক) । ঘুমের শুরু কবে কোথায় হয়েছিল হিসাব কষে বলতে না পারলেও আমাদের সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, কৃষিমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী ঘুমকে শৈল্পিক ভাবে জাতির কাছে উপস্থাপন করেছেন। শুরুটা বেশ বর্ণিল ছিল। মতিয়া চৌধরী অর্থমন্ত্রীর কাধে মাথা রেখে ঘুমাচ্ছেন! এর পরে সাহারা ঘুমালেন মাইকের চিল্লা চিল্লি উপেক্ষা করে। আশে পাশের সবাই যখন মৃত ঘোষণা করেই ফেলল, ঠিক তখন সাহারা উঠে সকলকে নিরাস করলেন। এত কিছুর পরে সব কিছু ঠিকই ছিল! নিরানন্দ জাতি কিছুটা হলেও আনন্দ বিনোদনের উপকরন পাচ্ছিল! কিন্তু এবার তারা দলীয় সভা সমাবেশ কিংবা মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক রেখে সংসদে গিয়ে যখন ঘুম শুরু করলেন তখন সেটা আর আমাদের বিনোদনের পর্যায়ে থাকেনি!

অ্যামেনিস্ট ইন্টারন্যাশনালের রিপোর্ট অনুযায়ী বাংলাদেশের সংসদের প্রতি ১ মিনিটের জন্যে জাতিকে গুনতে হয় ১৫ হাজার টাকা! আমাদের মত উন্নতশীল দেশের জন্যে এই হিসাব শুধু ভয়ংকর না প্রচণ্ড রকমের ভয়ংকর! গত কয়েকদিন আগে দেশের প্রায় সকল সংবাদ পত্র সংসদে বাজেট অধিবেশন চলাকালে মন্ত্রী এম পি’দের ঘুম, ফোনে মানুষকে ধমকানো, বা আড্ডা বাজির খবর ছেপেছে! এমনকি বাজেটের উপর একজন সংসদ বক্তব্য রাখার সময়ে স্পীকার স্বয়ং আড্ডা বাজি করছিলেন! এই হচ্ছে আমাদের মহান জাতীয় সংসদ! এর মধ্যে অধিকাংশ সাংসদ অনুপস্তিত ছিলেন! একবার চিন্তা করুন তো এদেরকে আপনি নির্বাচিত করেছেন, আপনার টাকা দিয়ে এরা সকাল থেকে সন্ধ্যা বেঁচে আছে! আপনার জন্যে এরা কি করছে!!

কিছুদিন আগে কিছু সাংসদের মুখের ভাষা এতই খারাপ ছিল যে স্পীকার সেই সব বক্তব্য বায়েজাপ্ত করেছিলেন! আর সাধারন মানুষের অনুভুতি কি ছিল? মানুষ ভাবছিল এখন আর পর্ণ সিডি কিনতে হবে না, জাতীয় সংসদ দেখলেই চলবে! এই হচ্ছে আমাদের মহান সংসদ!

সব শেষে একই সুত্রে গাঁথা একটি পুরনো খবর দিয়ে শেষ করতে চাই! উত্তর কুরিয়ায় সরকারের উচ্চপর্যায়ের একজন কর্মকর্তা সরকারী বৈঠক চলাকালে ঘুমিয়ে পড়ার অপরাধে প্রকাশ্যে গুলি করে মারা হয়েছিল! ব্যাপারটা আমাদের দেশে খুব প্রয়োজন! একান্ত আমাদের কষ্টের টাকা দিয়ে যেন বিলাশিতা করা কেউ বেঁচে থাকতে না পারে!